BHP BLOG

BHP BLOG

Google Web Search Gadget

শ্রীকৃষ্ণ এবং অর্জুন

শ্রীকৃষ্ণ এবং অর্জুন
অর্জুন তোমার আমার বহুবার জন্ম হয়েছে। সে কথা তোমার মনে নেই, সবই আমার মনে আছে।

Wednesday, May 21, 2014

গুজরাট দাঙ্গায় হিন্দুরাই বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছিল

নরেন্দ্র ভাই মোদীকে সেকুলারিস্টরা নিন্দা জানায় এই বলে তিনি নাকি গুজরাট দাঙ্গা শুরু করেছিলেন এবং তাদের ক্ষোভ সেই দাঙ্গাতে মুসলিম মারা গিয়েছিল।

২০১১ সালের ১২ সেপ্টেম্বর সোমবার সুপ্রিম কোর্টের পক্ষ থেকে বিশেষ তদন্ত দলকে (সিট) এ নির্দেশ দেওয়া হয়।
 
টাইমস অব ইন্ডিয়ার অনলাইন প্রতিবেদনে বলা হয়,
 তিন বিচারপতির সমন্বয়ে গঠিত সুপ্রিম কোর্টের একটি বিশেষ বেঞ্চ বলেন, ‘২০০২ সালে গুজরাটে দাঙ্গার ঘটনায় করা মামলাগুলোতে আমাদের আর কোনো পর্যবেক্ষণ নেই। সিটের প্রতিবেদনে মোদিকে কোনো দোষারোপ করা হয়নি। 

১১ মে ২০০৫ এ কংগ্রেসের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর প্রতিবেদন আসে
, দাঙ্গাতে ৭৯০ মুসলিম ও ২৯৪ হিন্দু মারা যায়। 


ভারতীয় মুসলিমদের দৈনিক মিল্লাত গেজেট ও টা প্রকাশ করেন 

http://www.milligazette.com/Archives/2005/01-15June05-Print-Edition/011506200511.htm



খবরটা বিবিসিতেও আসে 
 
http://news.bbc.co.uk/2/hi/south_asia/4536199.stm

গুজরাটের মোট জনসংখ্যার ৮৯% হিন্দু আর ৯% মুসলিম।


http://en.wikipedia.org/wiki/Gujarat#Demographics




গুজরাট দাঙ্গায় নিহতদের ২৪% হিন্দু আর ৭৬% মুসলিম। তাহলে আনুপাতিক হিসাবে গুজরাট দাঙ্গায় কারা বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছিল।

ভারতের নির্বাচন তার সাথে বাংলাদেশের মিডিয়া জগতে চলছে
, এক ধরনের রিউমেটিক ফিভার। যে আলোচনাতে প্রথমেই আসে শঙ্কার কথা। যদি হিন্দুত্ববাদী দল, বিজেপি সরকার গঠন করে, তাতে কি হতে পারে? পশ্চিমবঙ্গ, আসাম ও ত্রিপুরার বাহিরে বাংলাদেশ নিয়ে, অন্যান্য ভারতীয়রা কেউ মাথা ঘামায় না। অনেক মানুষ কিছু জানেই না। এক্ষেত্রে সে দেশের ধাত্রীর ভূমিকাতে, অযাচিতভাবে আছে বাংলাদেশের মিডিয়া ও কিছু ভাড়াটে বুদ্ধিজীবি। হিন্দুত্ববাদ,শব্দটি বাজারে চলবে বলেই, সুপরিকল্পিতভাবে এই শব্দটির ব্যবহার চলছে। আমাদের নিজের দেশে, বড় দুই দলই তো মৌলবাদী, সেখানে ওই দেশের হিন্দুত্ববাদী দল নিয়ে এত মাথা-ব্যথার কারণ কি? ছাগল বুদ্ধিজীবিরা কেন নিজের দেশ নিয়ে সমালোচনাতে নামে না?
বিজেপির মোদীকে, সে দেশের উচ্চ-আদালত, গুজরাত দাঙ্গাতে দোষী প্রমাণে ব্যর্থ হয়েছেন। সেখানে, মোদীকে ঘিরে বাংলাদেশের এই সলিমুল্লাহ না কলিমুল্লাহ বা কোন্‌ হরিদাস পাল, ***** মন্তব্য করে যাচ্ছেন, এই স্পর্ধা আসে কোথা থেকে? একটি দেশের উচ্চ-আদালতের সিদ্ধান্তকে শ্রদ্ধা করতে শিখুন। নিজে ইতর হলে মনে হয়, জগত জুড়ে কেবল ইতরামো। আমাদের দেশের আদালতের উপর আমাদের আস্থা নেই। যার পক্ষে যায়, সে বলে আদালত নিরপেক্ষ বিচার করেন। যার বিপক্ষে যায়, সে আদালতের মুণ্ড প্রকাশ্যে চিবায়। আর আমাদের কোনো হাই-কমান্ড অন্যায় করেন না। যদি কখনও কোনো মামলা রজ্জু করা হয়, তাতে শোনা যায়, সস্তা কথা- - -পলিটিকেলি মটিভেইটেড।
আর আদালতকে কাঁচকলা দেখানো, দেখে দেখে আমরা সাধারণ নাগরকিরা অভ্যস্ত হয়ে গেছি। এখন কোনো দেশের আদালত ব্যবস্থা একটু উন্নত দেখে বুঝি সহ্য হচ্ছে না? ওদেরকে আমাদের কাতারে না আনা পর্যন্ত, আনন্দ-ও মিলছে না। কিন্তু ভারতীয় আদালতের নির্দেশ অমান্য করার মতো, এত শক্তিশালী কেউ সে দেশে, সে প্রমাণ রাখেনি। মোদী যদি ক্ষমতায় আসেন, আপনার কি আশা করেন, আপনাদের মত ছাগলের সাথে কথা বলতে সে মানুষ আগ্রহী হবেন? সুতরাং ছাগলের তিন নম্বর বাচ্চার মতো কেন লাফাচ্ছেন? আপনারা মোদীকে এত কথা বলার আগে, একটু যাচাই করে নিন, নরেন্দ্র মোদী আপনাদেরকে মানুষ হিসেবে গণ্য করেন কি না? সেটুকু জানলে আরেকটু ভালো হত না?
কথায় কথায় গুজরাতের দাঙ্গায় নিহতের শোকে, বাংলাদেশের উন্নত মুসলমানের হ্নদয় ভারী হয়ে আসে? বাহ্‌ কি প্রেম? মাছের মা'র পুত্রশোক। চোখের সামনে সিরিয়াতে, হাজার অতিক্রম করে এখন নিহতের সংখ্যা লক্ষ অতিক্রম করেছে। চল্লিশ বছরের বেশী সময় ধরে আফগানিস্থানে কত লক্ষ মরেছে, সে হিসেব নেই। পাকিস্তানে, রোজ মরছে। ক'বার নিন্দা জানান? উন্নত মুসলমান'রা চোখে দেখেন না? না কি ওরা মুসলমান নয়? এখানে সত্য কি? যারা গুজরাতের জন্য কাঁদেন, অন্য দেশের মুসলমান নর-নারী শিশু-বৃদ্ধ - - - হত্যা দেখে আপনাদের চোখে জল আসে না? আপনারা কি গুজরাতের ভাষায় কথা বলেন? কালচারের মিল আছে? তা হলে এত ভাব দেখানো যে, উদ্দেশ্য-প্রণোদিত তাই প্রমাণ করে।
যারা কেবল একপেশে বিচার করে, নরেন্দ্র মোদীকে দায়ি করছেন। অথচ ওই ঘটনার সূচনা নিয়ে কথা বলেন না, এড়িয়ে যান, নিন্দা জানাতে জানেন না, এ আপনাদের কেমন বিচার? যদি গোধরা স্টেশনে হত্যাকাণ্ডের মতো, বিশ্ব -এজতেমা ফেরত একটি ট্রেনে, কোন উগ্র হিন্দুরা বা বৌদ্ধরা মিলে পেট্রল বোমাতে, একশো মানুষ জীবিত পুড়ে মারে, কি হবে অবস্থা? তখন কি কবি নজরুলের কবিতা আবৃত্তি করবেন? গাহি সাম্যের গান- - - -!! যারা, ইচ্ছাকৃতভাবে কেবল দ্বিতীয় পর্যায়ের হত্যা নিয়ে কথা বলেন, আপনার হলেন জাত ইতর!! যদি সমালোচনা ও নিন্দা জানাতে হয়, তবে যে কোন অন্যায়-কে, ছাড় দেবেন না। অন্যায় মানে অন্যায়। আর যদি সে সাহস না থাকে, চাটুকারি ছেড়ে চুপ করুন। ছাগলের পাল স্ব-ঘোষিত বুদ্ধিজীবিদের জন্য বাংলাদেশ জ্বলতে শুরু করছে। একদিন নিয়ন্ত্রণের সম্পূর্ণ বাহিরে চলে যাবে। পশুদের মধ্যে গাধার বুদ্ধি তুনামুলক কম। শৃগালের বুদ্ধি অনেক বেশী। তাই শৃগালের ব্যারিস্টার হওয়ার আগে যাচাই করেন, গাধা আপনাদেরকে বুদ্ধি-দাতা হিসেবে মানে কি না?

Friday, May 2, 2014

চাঁপাইনবাবগঞ্জে মন্দির ভাঙ্গার সময় নয় মুসলিম সন্ত্রাসী গ্রেপ্তার



তথাকথিত অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশে চাঁপাইনবাবগঞ্জের নাচোল উপজেরায় মঙ্গলবার একটি প্রাচীন মন্দির ভাঙ্গার সময় নয় ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ এরা প্রত্যেকে ধর্মান্ধ মুসলিম।

এরা হল জেলা শহরের কাঁঠাল বাগিচার নুরুল ইসলাম (৬৫), মসজিদ পাড়ার সুইট হাসান (২৯), নাচোল বাজারের গোলাম বারকি (২৮), শহীদ মোমিন (৬৫), শাহাজাহন (৩২), ওয়াজেদ (৬০), শের আলী মোল্লা (৫০), সাদিরুদ্দিন (৪২) ফারুক হোসেন (২৮)

নাচোল থানার ওসি মো. সানাউল হক জানান, দেওপাড়া এলাকার একটি জমিতে প্রাচীন এই মন্দিরটির অবস্থান মন্দিরের জমিটি নুরুল ইসলাম নিজের দাবি করে সকাল সাড়ে ৯টার দিকে লোকজন নিয়ে তা ভাংতে শুরু করে

সময় এলাকাবাসীর কাছে খবর পেয়ে পুলিশ গিয়ে তাদের গ্রেপ্তার করে গ্রেপ্তারকৃতদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে বলে জানান ওসি ঘটনার পর নাচোল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সুফিয়া আক্তার রুমি ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন

বাংলাদেশ হিন্দু, বৌদ্ধ, খৃস্টান ঐক্য পরিষদরে চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা সভাপতি রঞ্জন রানী বর্মন জানান, মন্দিরটি বৃটিশ আমলে তৈরি নুরুল তার লোকজন মন্দিরের ক্ষতি সাধন করেছে

Thursday, May 1, 2014

লাভ জিহাদের নির্মম বলিঃআসামের বিধায়ক রুমি নাথ



আসামের বিধায়ক রুমি নাথ।২০১২ সালের মে মাসে তার পূর্বের স্বামীকে ডিভোর্স দিয়ে ভালবেসে বিয়ে করে জ্যাকি জাকির নামের এক মুসলিমকে।বিয়ের সময় সে ইসলাম গ্রহন করে। তখন নাম হয় রাবেয়া সুলতানা। উল্লেখ্য তার আগের ঘরে একটি বাচ্চাও রয়েছে।

বিয়ের পর রুমির পর শুরু হয় জাকিরের অকথ্য নির্যাতন, মারধর।মদ্যপ এবং বহুগামি জাকিরের নির্যাতন প্রথমে সহ্য করে নিলে এর মাত্রা আরও বাড়তে থাকে। সহ্যের সীমা অতিক্রম হলে রুমি পুলিশের কাছে অভিযোগ করে।

অসমের বিধায়ক রুমি নাথের অভিযোগের ভিত্তিতে তাঁর স্বামী জ্যাকি জাকিরকে আটক করেছে পুলিশ। দক্ষিণ অসমের ডিআইজি বিনোদ কুমার জানিয়েছেন, “জ্যাকির বিরুদ্ধে শারীরিক মানসিক নির্যাতনের অভিযোগ এনেছেন রুমি নাথ।এর পরই জাকিরকে থানায় তুলে আনা হয়। তবে এখনও গ্রেফতার করা হয়নি। জিজ্ঞাসাবাদ চলছে। অসমের কাছাড় জেলার বড়খলার কংগ্রেস বিধায়ক রুমি পরে সাংবাদিকদের জানান, ‘‘অনেক দিন থেকেই জ্যাকি নির্যাতন করে চলেছে। কথায়-কথায় মারধর করে। টাকাপয়সা ছিনিয়ে নেয়। প্রতি রাতে নেশা করে বাড়ি ফেরে।কালও একই ভাবে মাতাল হয়ে ফেরে। প্রথমে দুজনের মধ্যে কথা কাটাকাটি শুরু হয়। পরে মারধর। রুমির অভিযোগ, “এক সময় হাত-পা বেঁধে আমাকে মেরে ফেলতে চায়। কোনও রকমে রেহাই পেয়েছি।’’

http://www.anandabazar.com/national/-কর-খবর-1.26299

***
ধর্মান্তরিত হউয়া সব হিন্দু মেয়ের কপালে এমন ভাগ্যই লেখা থাকে ।বরং আরও খারাপ হতে পারে। অনেক মেয়েই আছে পরবর্তী তে যাদের স্থান হয়েছে পতিতা পল্লিতে।ধরমান্তরিত হিন্দু মেয়েরা বাবা মা কে কষ্ট দিয়ে সুখি হবে না একথা ১০০ ভাগ প্রমানিত। সকল উদাহরন দেখে কি মেয়েরা শিক্ষা নেবে।
অনেক মেয়েই আজকাল লাভ জিহাদের কবলে পড়ে এমন দুর্দশায় পড়ছে। বয়সন্ধিক্ষনের রঙ্গিন সময়ে মেয়েরা এই ফাঁদে পড়ে এবং সারা জীবন এই প্রতারণার কষ্ট বয়ে বেড়াতে হয়।একটা কথা মনে রাখতে হবে। লাভ জিহাদের পরে কে লাভবান হয়। অবশ্যই মুসলিম ছেলেরা। একটা মেয়েকে ধর্মান্তরিত করে যে পুণ্য সে তার পরিবার আর আশেপাশের মানুষেরা পায় তাতেই তাদের স্বর্গ নিশ্চিত হয়ে যায়।একপাশে স্বর্গ লাভ অন্যপাশে সুন্দরী নারী; এমন সহজ আর লোভাতুর সুযোগ কে হাতছাড়া করতে চায়?অন্যদিকে মেয়ের কি লাভ হয়? তার পরিবার, বাবা মা স্বজন সবাইকে ছাড়তে হয়। কিছুদিন যেতে না যেতেই সব মেয়েদের রঙ্গিন চশমা নামতে শুরু করে। পরিবারে তার অবস্থান শুধু শয্যাসঙ্গিনী, রাঁধুনি আর সন্তান উৎপাদনের মেশিন। মানে থ্রি ইন ওয়ান।তাদের জন্য বলাই আছে মেয়েরা শস্যক্ষেত্রের মত বা যেখানে একাধিক স্ত্রী রাখা বৈধ,তার সাথে অসংখ্য যৌনদাসী বৈধ,যখন তখন তালাক দিয়ে ঘর থেকে বের করে দেয়া যায়। যে সমাজে মেয়েদের কে নুন্যতম সম্মান প্রদর্শন করা হয় না সেই নরকে তার বাস করতে হয়। অনেক মেয়ে মুখ বুজে সহ্য করে মেনে নেয় অনেকে মানতে না পেরে পালিয়ে আসে। পালিয়ে আসার পর যদি তার পিতামাতা তাকে আশ্রয় না দেয় তাহলে তাদের স্থান হয় আস্তাকুড়ে, পতিতালয়ে যেখানে সারা জীবন ছিরে ছিরে খায় তাদেরকে নরপশুরা। এভাবে আমাদের চোখের সামনে অনেকেই লাভ জিহাদের শিকার হয়ে প্রতারিত হচ্ছে। আমরা বাবা মা ভাই বোন বন্ধু হয়ে কখনও এদেরকে রক্ষা করার জন্য সঠিক দায়িত্ব পালন করছি? মা হসেবে মেয়েকে কি বিষয়ে সচেতন করছি? বড় বোন হিসেবে ছোট বোনকে? বাই হিসেবে বোনকে, বাবা হিসেবে মেয়েকে? নিজের স্বজন বন্ধু মেয়েটিকে প্রতারনার হাত থেকে বাঁচানোর দায়িত্ব কি আমাদের নয়? মনে রাখবেন আপনি যদি জেনেও মেয়েটিকে সচেতন না করেন তাহলে সে দায় আপনারও।


লাভ জিহাদ প্রতিরোধ করবেন কি করেঃ 

লাভ জ্বিহাদের কালো থাবায় পিষ্ট হচ্ছে মেয়েরা, কিন্তু এই দায় কি শুধু মেয়েদের একার? 

মেয়েরা ধর্মান্তরিত হচ্ছে এই দায় শুধু মেয়েদের একার নয়। কেন নয়? 

উত্তরঃ
- ভাই হয়ে কি আমরা বোনের বন্ধু হতে পেরেছি? 

- বাবা, দাদা বা কাকারা কি বন্ধুর মত আচরণ করে আমাদের ঘড়ের মেয়েদের সাথে? 

- মেয়েরা যদি সাপোর্ট পেত তবে এই সমস্যা মহামারী আকারে দেখা যেত না। ছেলেরা ফেইসবুক ব্যবহার করছে গন হারে, কিন্তু মেয়েরা কি পারছে ব্যবহার করতে? তাহলে তাঁরা সচেতন হবে কি করে? 

- ছেলেরা বাইরে অবাধ বিচরণ করে বলে বিভিন্ন অভিজ্ঞতা শেয়ার করতে পারে বন্ধু বা বড় ভাইদের সাথে কিন্তু মেয়েরা কি পারছে সেটা করতে? গৃহ বন্ধি হয়ে কি জ্ঞান অর্জন করা যায়?

- পারিবারিক ধর্ম শিক্ষার অভাব আছে এটাও কিন্তু মেয়েদের দোষ নয়, পরিবারের কর্তা নিধারণ করে দিলে পারিবারিক ধর্ম চর্চা সবাই করবে এটাই সাভাবিক। তাই এই দায় ছেলেদের। 

- এখানে কিছু ব্যতিক্রম থাকে যা নিয়ে আলোচনার প্রয়োজন বোধ করছি না। এই ব্যতিক্রমের মুল উপাদান হলো লোভ। এই ব্যতিক্রমের হার খুব বেশি নয়। এরা বিপথে যাবে বলে জন্ম নিয়েছে তাই তাঁদের কথা ভেবে লাভ নেয়। 
-কোন মেয়ে লাভ জিহাদের পাল্লায় পড়লে সাথে সাথে তার বাবা মা আত্মীয় স্বজন কে জানান(দরকার হলে নিজের পরিচয় গোপন করে হলেও)
সর্বপরি থেকে বাঁচার একমাত্র উপায় হল সচেতনতা তৈরি করতে হবে হিন্দু মেয়েদের মাঝে।এ বিষয়ে জীবনের শুরুতেই (অর্থাৎ বয়সন্ধি কালের শুরুতেই,বাড়ি থেকে যখন বের হয়ে গেল অর্থাৎ স্কুল, কলেজ ভার্সিটির জন্য বাইরের সাথে যোগাযোগ হল) তখনই ভাই হিসেবে বোনকে,বাবা হিসেবে মেয়েকে,বন্ধু হিসেবে বন্ধুকে খোলাখুলি বলুন, আলোচনা করুণ। 
বাংলাদেশে যে সকল ছেলে মেয়ারা লাভ জিহাদের ফাঁদে পড়েছে তারা কি একবার ভেবে দেখেছে যে সকল লোকেরা হিন্দু বাড়ি ঘর ভাংছে হিন্দু গৃহবধূ বা মেয়েদের ধর্ষণ করছে, কিছুদিন পরে তারাই তাদের স্বামী, শ্বশুর,আত্মীয় হতে চলেছে।

সমস্যার উৎস গুলি কে চিহ্নিত করা হয়েছে ঠিক আছে, যে সব স্থানে আমরা মানে ছেলেরা সচেতন হলে মেয়েরা কালো থাবা থেকে বেঁচে যেত সেগুলিকে আগে ঠিক করে পরে অন্য কিছু ভাবা দরকার। প্রায় দেখি পোষ্ট ঢালাও ভাবে মেয়েদের দোষী করা হয়, হয়তো অনেক ক্ষেত্রে দোষ দেওয়া যুক্তি যুক্ত। ধরে নিলাম দোষ আছে মেয়েদের তবুও কি সব দোষ সব সময় সবার সামনে উল্লেখ করতে হবে? মেয়ে সম্প্রদায়কে যদি ঢালাও ভাবে দোষ দেওয়া হয় এটা হবে চরম অন্যায়। 

এই লাভ জ্বিহাদ ঠেকাতে হলে মেয়েদের কি করতে হবে তার চাইতে ছেলেদের সচেতন হতে হবে বেশি করে। ছেলেদেরকে মেয়দের বন্ধু হতে হবে,ভাইকে বোনের বন্ধু হতে হবে, বোনকে জানাতে হবে, পিতা হয়ে নিজের মেয়েকে এই বিষয়ে সচেতন করতে হবে, বোন কে তথ্য দিতে হবে, আপনি বোনদের সাথে শেয়ার করতে লজ্জা পেলে আপনার বোন জানবে কি করে এই বিষয়ে? 

অন্যের ঘাড়ে দোষ চাপানোর থেকে নিজের ভূমিকা পালন করা উত্তম বলে আমি মনে করি। 

Labels

বাংলা (171) বাংলাদেশে হিন্দু নির্যাতন (22) ethnic-cleansing (17) ভারতীয় মুসলিমদের সন্ত্রাস (17) islamic bangladesh (13) ভারতে হিন্দু নির্যাতন (12) : bangladesh (11) হিন্দু নির্যাতন (11) সংখ্যালঘু নির্যাতন (9) সংখ্যালঘু (7) আরব ইসলামিক সাম্রাজ্যবাদ (6) minority (5) নোয়াখালী দাঙ্গা (5) হিন্দু (5) hindu (4) minor (4) নরেন্দ্র মোদী (4) বাংলাদেশ (4) বাংলাদেশী মুসলিম সন্ত্রাস (4) ভুলে যাওয়া ইতিহাস (4) love jihad (3) গুজরাট (3) বাংলাদেশে সংখ্যালঘু নির্যাতন (3) বিজেপি (3) ভারতে অনুপ্রবেশ (3) মুসলিম বর্বরতা (3) হিন্দু নিধন (3) George Harrison (2) Julia Roberts (2) List of converts to Hinduism (2) bangladesh (2) কলকাতা (2) গুজরাট দাঙ্গা (2) বাবরী মসজিদ (2) মন্দির ধ্বংস (2) মুসলিম ছেলেদের ভালবাসার ফাঁদ (2) লাভ জিহাদ (2) শ্ত্রু সম্পত্তি আইন (2) সোমনাথ মন্দির (2) হিন্দু এক হও (2) হিন্দু মন্দির ধ্বংস (2) হিন্দু মুসলিম দাঙ্গা (2) Bhola Massacre (1) English (1) april fool. মুসলিম মিথ্যাচার (1) converted hindu celebrity (1) converting into hindu (1) dharma (1) facebook (1) gonesh puja (1) gujrat (1) gujrat riot (1) jammu and kashmir (1) om (1) religion (1) roth yatra (1) salman khan (1) shib linga (1) shib lingam (1) swami vivekanada (1) swamiji (1) অউম (1) অক্ষরধাম মন্দিরে জঙ্গি হামলা ২০০২ (1) অধ্যক্ষ গোপাল কৃষ্ণ মুহুরী (1) অর্পিত সম্পত্তি আইন (1) আওরঙ্গজেব (1) আদি শঙ্কর বা শঙ্করাচার্য (1) আর্য আক্রমণ তত্ত্ব (1) আসাম (1) ইতিহাস (1) ইয়াকুব মেমন (1) উত্তরপ্রদেশ (1) এপ্রিল ফুল (1) ওঁ (1) ওঁ কার (1) ওঁম (1) ওম (1) কবি ও সন্ন্যাসী (1) কাদের মোল্লা (1) কারিনা (1) কালীঘাট মন্দির (1) কাশী বিশ্বনাথ মন্দির (1) কৃষ্ণ জন্মস্থান (1) কেন একজন মুসলিম কোন অমুসলিমের বন্ধু হতে পারে না? (1) কেন মুসলিমরা জঙ্গি হচ্ছে (1) কেশব দেও মন্দির (1) খ্রিস্টান সন্ত্রাসবাদ (1) গনেশ পূজা (1) গুজরাটের জঙ্গি হামলা (1) জাতিগত নির্মূলীকরণ (1) জামাআ’তুল মুজাহিদীন বাংলাদেশের (1) জেএমবি (1) দেশের শত্রু (1) ধর্ম (1) ধর্মযুদ্ধ (1) নবদুর্গা (1) নববর্ষ (1) নালন্দা (1) নালন্দা বিশ্ববিদ্যালয় (1) নোয়াখালি (1) পঞ্চ দেবতার পূজা (1) পহেলা বৈশাখ (1) পহেলা বৈশাখ কি ১৪ এপ্রিল (1) পাকিস্তানী হিন্দু (1) পূজা (1) পূজা ও যজ্ঞ (1) পূজার পদধিত (1) পৌত্তলিকতা (1) ফেসবুক (1) বখতিয়ার খলজি (1) বরিশাল দাঙ্গা (1) বর্ণপ্রথা (1) বর্ণভেদ (1) বলিউড (1) বাঁশখালী (1) বিহার (1) বুদ্ধ কি নতুন ধর্ম প্রচার করেছেন (1) বৈদিক ধরম (1) বৌদ্ধ দর্শন (1) বৌদ্ধ ধর্ম (1) ভারত (1) মথুরা (1) মরিচঝাঁপি (1) মানব ধর্ম (1) মিনি পাকিস্তান (1) মীরাট (1) মুক্তমনা (1) মুক্তিযুদ্ধ (1) মুজাফফরনগর দাঙ্গা (1) মুম্বাই ১৯৯৩ (1) মুলতান সূর্য মন্দির (1) মুলায়ম সিং যাদব (1) মুসলিম তোষণ (1) মুসলিম ধর্ষক (1) মুসলিমদের পুড়ে মারার ভ্রান্ত গল্প (1) মুহাম্মদ বিন কাশিম (1) মূর্তি পুজা (1) যক্ষপ্রশ্ন (1) যাদব দাস (1) রথ যাত্রা (1) রথ যাত্রার ইতিহাস (1) রবি ঠাকুর ও স্বামীজী (1) রবি ঠাকুরের মা (1) রবীন্দ্রনাথ ও স্বামীজী (1) রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর (1) রিলিজিওন (1) রুমি নাথ (1) শক্তিপীঠ (1) শঙ্করাচার্য (1) শিব লিংগ (1) শিব লিঙ্গ (1) শিব লিঙ্গ নিয়ে অপপ্রচার (1) শ্রীকৃষ্ণ (1) সনাতন ধর্ম (1) সনাতনে আগমন (1) সাইফুরস কোচিং (1) সালমান খান (1) সোমনাথ (1) স্বামী বিবেকানন্দ (1) স্বামীজী (1) হিন্দু ও বৌদ্ধ ধর্ম (1) হিন্দু জঙ্গি (1) হিন্দু ধর্ম (1) হিন্দু ধর্ম গ্রহন (1) হিন্দু বিরোধী মিডিয়া (1) হিন্দু মন্দির (1) হিন্দু শিক্ষার্থীদের মগজ ধোলাই (1) হিন্দুধর্মে পৌত্তলিকতা (1) হিন্দুরা কি পৌত্তলিক? (1) ১লা বৈশাখ (1) ১৯৭১ (1)

সাম্প্রতিক মন্তব্য

Blogger Tips and TricksLatest Tips And TricksBlogger Tricks

সর্বোচ্চ মন্তব্যকারী